কয়লা পাচার মামলায় সিআইডির হাতে গ্রেপ্তার বারিক বিশ্বাস


বেআইনি কয়লা পাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে সিআইডির গোয়েন্দারা মালঞ্চ থেকে শুক্রবার উত্তর ২৪ পরগনারসীমান্ত মাফিয়া' বারিক বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করেছেন। সিআইডি জানিয়েছে, চলতি বছরের জুলাই জামুরিয়া থানায় দায়ের হওয়া একটি কয়লা পাচারের মামলায় ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে উত্তর ২৪ পরগনার এই বারিকের নাম পাওয়া যায়। সেই সূত্র ধরেই বারিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে ইডির সন্দেহ, কোটি কোটি টাকার সোনার বাট, বিস্কুট কেনার ঘটনায়, রাজ্যে গোল্ড স্মাগলিং সিন্ডিকেটের সক্রিয় সহযোগিতা ছাড়া কালো টাকাকে এভাবে সোনায় রূপান্তরের কাজ কার্যত অসম্ভব। তাই সীমান্ত এলাকায় গোরু- সোনা চোরাচালানে জড়িত দুষ্কৃতীদের নামের তালিকা নিয়ে নাড়াচাড়া শুরু করেছিলেন ইডির গোয়েন্দারা।

 

ঠিক এমনই এক প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে সিআইডির হাতে এদিন বারিকের এই গ্রেপ্তার অত্যন্ততাৎপর্যপূর্ণ। কে এই বারিক? ২০১৪ সালে ৪৫ কেজি সোনা সহ ডিআরআই এর গোয়েন্দাদের হাতে গ্রেপ্তার হয় এই বারিক। আন্তজার্তিক সোনা চোরাচালানের পাশাপাশি উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাট সীমান্ত দিয়ে গোরু পাচারেও তার নাম রয়েছে সিবিআই, ইডির মতো একাধিক কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার খাতায়। একদা বাম ঘনিষ্ট এই ব্যবসায়ী ২০১১ সালে রাজ্যের পালা বদলের পরই তৃণমূল অনুগামী হয়ে যায়। রাজনৈতিক দাদাদের মদতে বসিরহাট এলাকা সহ উত্তর ২৪ পরগনা জেলাজুড়ে তার দাপট। সিআইডির দাবি, ২০২১ সালে জামুড়িয়া এলাকায় একটি কারখানা কিনে নিয়ে শিল্পাঞ্চলে নিজের আধিপত্য বিস্তার করা শুরু করে সে। এরপর থেকেই সেই কারখানার পাশাপাশি বসিরহাট এলাকায় থাকা তার ১৮টি ইট ভাটায় শিল্পাঞ্চলের চোরাই কয়লা যেত বলে সিআইডি জানতে পেরেছে।

 

জামুড়িয়া থানার মামলায় সিআইডির জালে ধরা পড়া পাঁচ অভিযুক্ত যুধিষ্ঠির ঘোষ, ওমপ্রকাশ আগরওয়াল, অভিষেক সিং, বিজয় সিং মীর সইদুল জেরার মুখে জানিয়েছে, চোরাই কয়লা কিনে নিত এই বারিক বিশ্বাসই। শুক্রবার বারিককে আসানসোল আদালতে তোলা হলে বিচারক তরুণ মণ্ডল ১০ দিনের সিআইডি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বলে সরকারি আইনজীবী অরিন্দম চক্রবর্তী জানিয়েছেন। এদিন আসানসোল আদালত চত্বরে ভিড় জমিয়েছিলেন বারিক বিশ্বাসের অনুগামীরা। হাঙ্গামা ঠেকাতে আগে থেকেই আদালত চত্বরে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছিল পুলিস সিআইডি। 

Biplab Mondal

(BanglarBarta24x7.in) একটি বাংলা ভাষার ওয়েবসাইট। ভারতবর্ষের কেন্দ্রীয় সরকার এবং বিভিন্ন রাজ্য সরকার প্রতিবছর সরকারের কার্যকলাপ পরিচালনার জন্যে অনেক কর্মী নিয়োগ করে থাকে, সেই কর্মী নিয়োগের জন্যে বিভিন্ন দপ্তরে, বিভিন্ন সময়ে কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত করে থাকে। আমরা দেশের বিভিন্ন সরকারের চাকরির এবং সরকারি প্রকল্পের অফিসিয়াল নোটিশের খোঁজ রাখি এবং তা সহজ বাংলা ভাষায় আমাদের ওয়েবসাইটে জানিয়ে থাকি। telegram instagram facebook twitter


কোনোরকম জিজ্ঞাসা বা মতামত থাকলে কমেন্ট করুন ....

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন